Skip to content

‘প্রাচ্য ও দ্বৈতাদ্বৈতবাদ’ শিরোনামে শিল্পী তামিমা সুলতানার একক প্রদর্শনী

রাজধানীর লালমাটিয়ায় আর্ট গ্যালারি কলাকেন্দ্রে গত ২৮ এপ্রিল ২০২৩ (শুক্রবার) এই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন শিল্পী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ডিন নিসার হোসেন এবং নাট্যজন ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আফজাল হোসেন। আরও ছিলেন বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক লুভা নাহিদ চৌধুরীসহ অন্যরা।

আফজাল হোসেন বলেন, নাট্যজন সেলিম আল দীনের নাটকে থাকে মহাকাব্যিক ব্যাপ্তি। এই জনপদের বিবিধ শ্রেণি–পেশার মানুষের সুখ–দুঃখ, আশা–হতাশা, আবেগ–অনুভবের যেমন কুশলী বর্ণনা তিনি দিয়েছেন, তা নাট্যকলা, বাক্যকলার আয়তন ভেঙে চিত্রকলা হয়ে সামনে এসে দাঁড়ায়। নাট্যজন সেলিম আল দীনের সেই কাজ থেকে উৎসাহ নিয়েই শিল্পী তামিমা সুলতানা এই কাজে নেমেছেন। তামিমা ‘প্রাচ্য ও দ্বৈতাদ্বৈতবাদ’ প্রদর্শনীতে যেসব চিত্রকলা উপস্থাপন করেছেন, তা ভাবনা ও অনুভবের বিচারে বিশেষ।

নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, “তরুণ শিল্পী তামিমা সুলতানা সেলিম আল দীনের পাঁচালিজাত দ্বৈতাদ্বৈতবাদী নাটক ‘প্রাচ্য’র নবপ্রাণ ঘটানোর লক্ষ্যে চিত্রকলার মাধ্যমে নাটকটির প্রয়োগ ঘটাতে সচেষ্ট হয়েছেন। এ কাজ কঠিন বটে, কিন্তু অসম্ভব নয়। এ কথা তামিমা সুলতানার ‘প্রাচ্য’ চিত্রকর্ম প্রদর্শনী প্রমাণ করে।”

সেলিম আল দীনের পাঁচালিজাত ‘প্রাচ্য’ নাটকটি দুই যুগ আগে মঞ্চস্থ হয়েছিল ঢাকা থিয়েটারের প্রযোজনায়। তারও বেশ ক’বছর পর চট্টগ্রামের প্যান্টোমাইম মুভমেন্ট নাটকটি মঞ্চস্থ করেছিল মুকাভিনয়ে। এবার তা শিল্পী তামিমার চিত্রভাষ্যে উপস্থাপিত হল।

শিল্পী নিসার হোসেন বলেন, শিল্পের সব শাখা একই সূত্রে গাঁথা। সেলিম আল দীন তাঁর শিল্পে যে গভীর দর্শন উপস্থাপন করেছেন, তা–ই ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন তামিমা সুলতানা।

শিল্পের ভেতর দিয়ে নিজস্ব সংস্কৃতিকে খুঁজে পাওয়ার চেষ্টার কথা উঠে আসে তামিমা সুলতানার বক্তব্যে। নাট্যজন সেলিম আল দীনের কাজ অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

প্রদর্শনীটি চলবে আগামী ৩ মে পর্যন্ত। ঢাকা থিয়েটারের আয়োজনে ও বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটারের সহযোগিতায় প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে ৩০টির মতো শিল্পকর্ম। প্রতিদিন বিকেল চারটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে প্রদর্শনী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.